২৪শে অক্টোবর, ২০২০ ইং ।। রবিবার ।। ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ।। নিবন্ধনের জন্য তথ্য মন্ত্রণালয় আবেদনকৃত অনলাইন পত্রিকা www.jhalokathisomoy.com

সাম্প্রদায়িক, মৌলবাদী ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী ছাড়া যে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ সাইটের তথ্য, ছবি বা ভিডিও প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারবেন-সম্পাদক

রাজাপুরে ব্যাংকের প্রতারক চক্রের সদস্য গ্রেফতার

রাজাপুরে সোনালি ব্যাংক এর শাখা থেকে এক লাখ টাকা প্রতারনার মাধ্যমে হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দায়ের মামলার এজাহারভূক্ত এক আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মোঃ ফয়জুল (৩০) নামের ওই অভিযুক্তকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলা ছোট কৈবর্তখালী গ্রাম থেকে  গ্রেফতার করা হয়। ফয়জুল ঐ এলাকার মোঃ ইউসুব হাওলাদারের ছেলে।

মামলা সূত্রে জানাগেছে, উপজেলা সদর ইউনিয়নের আব্দুল হাসেম হাওলাদার ছেলে আব্দুর রহিম গত বৃহস্পতিবার সোনালি ব্যাংক এর উপজেলা শাখায় তার একাউন্টে দুই লাখ টাকা জমা রাখাতে আসেন। এ সময় একটি প্রতারক চক্র তাকে ফাঁদে ফেলে বোকা বানিয়ে কৌশলে এক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে সটকে পরে।

পরে ব্যাংকের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ফয়জুলকে শনাক্ত করা হয়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় আব্দুর রহিম বাদী হয়ে ফয়জুলসহ ৬ জনকে আসামি করে রাজাপুর থানায় মামলা দায়ের করেন (মামলা নম্বর ১১)। মামলার পরেই ফয়জুলকে তার এলাকা থেকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ভূক্তভোগি আব্দুর রহিম জানায়, প্রতারক চক্র আমাকে বোকা বানাতে প্রথমে নিজেরা নিজেদের টাকা নিচে ফেলে আমার টাকা পড়েছে বলে আমাকে জানায়। তখন আমি নিচ থেকে ঐ টাকা তুলতে গেলে কাউন্টারে আমার এক লাখ টাকা তারা হাতিয়ে নিয়ে সটকে পরে।

সোনালি ব্যাংক এর উপজেলা শাখায় ম্যানেজার শুব্রত মণ্ডল সাংবাদিকদের জানান, ঘটনার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ স্থানীয় থানা পুলিশকে সরবরাহ করা হয়েছে। আশা করি খুব শীঘ্রই প্রকৃত অপরাধীদের পুলিশ গ্রেফতার করতে সক্ষম হবে।

রাজাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ শহিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, মামলার এজাহারভূক্ত একজন আসামি গ্রেফতার করে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। ঘটনার সাথে জড়িত বাকিদের গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

(ডেস্ক/বাস/ঝাস)

 


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo
সম্পাদক ও প্রকাশক : পলাশ রায়
১৪, রীডরোড, শহীদ স্মরণি, ঝালকাঠি ৮৪০০
ইমেইল : [email protected]
মুঠোফোন : ০১৭১২ ৫১ ৭৫ ৪৬
© All rights reserved © 2019