২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ইং ।। শুক্রবার ।। ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ ।। নিবন্ধনের জন্য তথ্য মন্ত্রণালয় আবেদনকৃত অনলাইন পত্রিকা www.jhalokathisomoy.com

সাম্প্রদায়িক, মৌলবাদী ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী ছাড়া যে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ সাইটের তথ্য, ছবি বা ভিডিও প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারবেন-সম্পাদক

রাজাপুরে বিএনপি সভাপতি গ্রেফতার

এক মাদ্রাসা অধ্যক্ষকে মারধরের অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও ওই মাদ্রাসার এক শিক্ষককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  বুধবার দুপুরে আটক হওয়ার পর রাতে মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখিয়েছে পুলিশ।

রাজাপুর থানার ওসি (তদন্ত)আবুল কালাম আজাদ জানান, দুপুরে উপজেলার কেওতা ঘিগড়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা অলিউল্লাহকে তার কক্ষে ঢুকে রাজাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতিসহ কতিপয় লোকজন মারধর করেন-এমন খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। ঘটনাস্থল থেকে বিএনপির নেতা ও মাদ্রাসা শিক্ষককে আটক করে থানায় আনা হয়।

ওসি তদন্ত কালাম বলেন, রাতে অধ্যক্ষ বাদী হয়ে যুবদল নেতা নাজমুল হুদা চমন, তারা চাচা উপজেলা বিএনপির সভাপতি তালুকদার আবুল কালাম আজাদ, মাদ্রাসার উপধ্যক্ষ সাইফুল ইসলাম ও প্রভাষক শাহিন হাওলাদারের নাম উল্লেখসহ আরও ৪/৫জন অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে ধারধরের অভিযোগে মামলাটি করেছেন।মামলায় ২ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। বাকি আসামীদেরও গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে, জানান রাজাপুর থানার এ পুলিশ কর্মকর্তা।

কেওতা ঘিগড়া ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা অলিউল্লাহ  বলেন, গত বছরের (২০১৯) ২১ সেপ্টেম্বর একটি নিয়োগ পরীক্ষায় অফিস সহকারী কাম কমিপ্পউটার পদে প্রথম হওয়া মো. হাফিজুর রহমানকে নিয়ম অনুযায়ি মাদ্রাসায় নিয়োগ দেয়া  হয়।

ওই নিয়োগ পরীক্ষায় স্থানীয় যুবদল নেতা তালুদার আবুল কালাম আজাদের বড় ভাইয়ের ছেলে নাজমুল হুদা চমনের স্ত্রী মরিয়ম খানম যৌথভাবে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করে। কিন্তু ওই পদে চমনের স্ত্রীকে নিয়োগ দিতে চাচা-ভাতিজা আমাকে চাপ দিতে থাকে।

নিয়োগ ঠেকাতে না পেরে ঝালকাঠির রাজাপুর সহকারী আদালতে একটি মামলা  (নং ৯২/১৯) করে। আদালত সে মামলা খারিজ করে দেয়।

আজকে সকালে (বুধবার ২২ জানুয়ারি) আবুল কালাম ও তার ভাতিজা চমন লোকজন নিয়ে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করে আমাকে মারধর করতে থাকে। আমাকে রক্ষা করতে এগিয়ে আসলে মাদ্রসার সহকারী শিক্ষক মোবাশ্বের হোসেন ও এবতোদায়ী প্রধান সাইদুর রহমান আহত।

অধ্যক্ষ বলেন, আমার নিজ প্রতিষ্ঠানের দুই শিক্ষকও মারধরকারীদের সহযোগিতা করে।চাচা-ভাতিজা ছাড়াও মাদ্রাসার এ দুই শিক্ষক ষড়যন্ত্রে রয়েছেন, বলেন মাদ্রাসা অধ্যক্ষ মাওলানা অলিউল্লাহ।

(ডেস্ক/বাস/ঝাস)


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo
সম্পাদক ও প্রকাশক : পলাশ রায়
১৪, রীডরোড, শহীদ স্মরণি, ঝালকাঠি ৮৪০০
ইমেইল : jhalokathisomoy@gmail.com
মুঠোফোন : ০১৭১২ ৫১ ৭৫ ৪৬
© All rights reserved © 2019
Developed BY : Website-open