২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ।। মঙ্গলবার ।। ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ।। নিবন্ধনের জন্য তথ্য মন্ত্রণালয় আবেদনকৃত অনলাইন পত্রিকা www.jhalokathisomoy.com

সাম্প্রদায়িক, মৌলবাদী ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী ছাড়া যে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ সাইটের তথ্য, ছবি বা ভিডিও প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারবেন-সম্পাদক

আ.লীগের ইউনিয়নের কাউন্সিল ভাংচুর-উত্তেজনায় পন্ড

ঝালকাঠি সদর উপজেলার ৭ নং পোনাবালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে দু’পক্ষের মধ্যে মারামারি, সভামঞ্চ ভাংচুর এবং নেতকর্মীদের অবরুদ্ধ করে রাখার ঘটনা ঘটেছে।পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেলের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে চরম উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

একাধিক প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৃহস্পতিবার বিকেলে ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ডাকা হয়।সম্মেলনের প্রধান অতিথি সদর উপজেলা চেয়ারম্যান খান আরিফুর রহমান পুরাতন কমিটির সভাপতি ও সম্পাদককে পুনরায় বাহলা রেখে নতুন কমিটি ঘোষণা করলে দুই পক্ষের মধ্যে  ভাংচুর ও মারামারি শুরু হয়।

সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবর রহমান। তিনি বলেন, সম্মেলনে সভাপতি পদ পেতে ইচ্ছুক শাহিন আকনের লোকজন এই হামালা ও ভাংচুর চালায়। তারা শান্তিপূর্ন সম্মেলনকে পন্ড করতে এবং ইউনিয়নকে কলঙ্কিত করতে পরিকল্পিত ভাবে এ কাজ করেছে।

এ ব্যপারে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা শাহিন আকন বলেন, বর্তমান সভাপতি মজিবর রহমান ও হাকিম গাজীকে পুরনায় বহাল রেখে কমিটি ঘোষণা করলে দলের সাধারণ কর্মীরা এর প্রতিবাদ করে।

সম্মেলনের প্রধান অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান খান আরিফুর রহমান আওয়ামী লীগের প্রবীণ নেতা ও ঝালকাঠি সদর আসনের এমপি আমির হোসেন আমুর নির্দেশে কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে উল্লেখ করলে সাধারণ নেতাকর্মীরা ভোটাভোটির দাবী করে।

ভোটের মাধ্যমে নেতাকে ( আমির হোসেন আমুকে) নতুন কমিটি উপহার দেয়ার দাবীকে সম্মেলনের অতিথিরা উপক্ষো করলে  এ ঘটনা ঘটে। এখানে আমার কোন হাত নেই, বলেন শাহিন আকন  ।

এ ব্যপারে সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহ্বায়ক ও  ৭নং পানাবালিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবুল বাশার খান বলেন, পদ পাওয়াকে নিয়ে এই অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটে। সম্মেলন পন্ড হওয়ার পর পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে জানতে চাইলে আবুল বাশার খান বলেন, নেতার (আমির হোসেন আমু) নির্দেশ অনুযায়ী পরবর্তী সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ঝালকাঠি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহমুদ হাসান  বলেন, উত্তপ্তকর পরিস্থিথির খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি এবং উপজেলা চেয়ারম্যানসহ অতিথিদের নিরাপত্বা দিয়ে ঝালকাঠি জেলা শহরে পৌছে দেই।

(ডেস্ক/বাস/ঝাস)


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo
সম্পাদক ও প্রকাশক : পলাশ রায়
১৪, রীডরোড, শহীদ স্মরণি, ঝালকাঠি ৮৪০০
ইমেইল : [email protected]
মুঠোফোন : ০১৭১২ ৫১ ৭৫ ৪৬
© All rights reserved © 2019