২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং ।। শনিবার ।। ১১ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ।। নিবন্ধনের জন্য তথ্য মন্ত্রণালয় আবেদনকৃত অনলাইন পত্রিকা www.jhalokathisomoy.com

সাম্প্রদায়িক, মৌলবাদী ও মুক্তিযুদ্ধবিরোধী ছাড়া যে কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ সাইটের তথ্য, ছবি বা ভিডিও প্রয়োজনে ব্যবহার করতে পারবেন-সম্পাদক

অস্ত্র ও চাঁদাবাজিতে মিলনসহ গ্রেফতার-৬

ঝালকাঠিতে চাঁদাবাজি ও অস্ত্র মামলায় জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতিসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।গ্রেফতারকালে সাবেক এ ছাত্রলীগ নেতার বাসা থেকে ১৫টি দেশিয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাদিসুর রহমান মিলন, ঝালকাঠি সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ইসলাম অপু,  মামুন খান, সাইফুল ইসলাম, পলাশ দাস ও মামুনুর রশিদ ওরফে কঠিন মামুন।

এদের মধ্যে অস্ত্র মামলায় হাদিসুর রহমান মিলন, তরিকুল ইসলাম অপু,  মামুন খান ও সাইফুল ইসলামকে আসামী করা হয়েছে। চাঁদাজির মামলায় আসামী হয়েছেন গ্রেফতার সবাই।

ঝালকাঠি সদর থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান মামলার বরাদ দিয়ে জানান, জেলা শহরের বিকনা এলাকার কালাম হোসেন হাওলাদার নামের এক ঠিকাদারের কাছে মাসিক ৫০ হাজার টাকা চাঁদার দাবী করে আসছে ছাত্রলীগ নেতা মিলন।

এ ঘটনাটি ঠিকাদার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জালানে ক্ষিপ্ত হয়ে মিলন ও তার লোকজন গত ৫ জানুয়ারি ঠিকাদার  কালাম হোসেনকে মারধর করে। পরে কামাল হোসেন এ ঘটনায় মিলনসহ ৭ জনকে অভিযুক্ত করে সদর থানায় লিখিত অভিযোগ করে।

আর ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে গতরাতে (মঙ্গলবার) শহরের ডাক্তারপট্টি এলাকায় ছাত্রলীগ নেতা মিলনের বাসায় অভিযান করলে ১১টি দেশিয় ধারালো রামদা ও ৪টি পাইপসহ প্রথমে মিলনসহ ৪ জন আটক হয়। পরে শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান করে অপর ২জন আটক করে পুলিশ।

ঠিকাদেরর করা অভিযোগটি মামলা হিসেবে রেকর্ড করা হয়েছে। অপরদিকে পুলিশ বাদী অস্ত্র মামলাটি দায়ের করেছে।

এদিকে মিলনের কাছে আরও অস্ত্র রয়েছে বলে পুলিশ ধারনা করছে। সে ব্যপারেও অভিযান চলানো হবে এবং চাঁদাবাজির মামলায় অভিযুক্ত অপর আসামীকেও গ্রেফতারে অভিযান অব্যহত আছে, বলেন ওসি মো. খলিলুর রহমান।

(ডেস্ক/বাস/ঝাস)


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Logo
সম্পাদক ও প্রকাশক : পলাশ রায়
১৪, রীডরোড, শহীদ স্মরণি, ঝালকাঠি ৮৪০০
ইমেইল : [email protected]
মুঠোফোন : ০১৭১২ ৫১ ৭৫ ৪৬
© All rights reserved © 2019